বাংলাদেশ জার্নালে যোগ দিলেন নবীন

Published: March 1, 2019 11:32 am | Updated: March 1, 2019 11:32 am

পিবিএ,ঢাকা: শাহজাহান সরদার সম্পাদিত প্রকাশিতব্য জাতীয় দৈনিক ‘বাংলাদেশ জার্নালে’ যোগ দিয়েছেন জোবায়ের আহমেদ নবীন।

পহেলা মার্চে যুগ্ম বার্তা সম্পাদক পদে যোগ দিয়েছেন তিনি। এর আগে দৈনিক মানবকণ্ঠে তিনি যুগ্ম বার্তা সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত বার্তা সম্পাদক) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন জোবায়ের আহমেদ নবীন।

আশির দশকে এই দিনে রাজধানী ঢাকায় যাত্রাবাড়ী নানাবাড়িতে জোবায়ের আহমেদ নবীন জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈত্রিক বাড়ি মুন্সীগঞ্জ জেলার লৌহজং থানার গাওদিয়া গ্রামে। বাবা এম এ জাহের ঝিলন ও নাজমা জাহেরের চার সন্তানের মধ্যে তিনি বড়।

দীর্ঘদিন ধরে সাংবাদিকতা পেশায় জড়িত জোবায়ের আহমেদ নবীন এর আগে দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকায় শিফট ইনচার্জ হিসাবে কাজ করেছেন। এছাড়া বাংলাদেশ টুডে ও বাংলাবাজার পত্রিকায় দীর্ঘদিন কাজ করেছেন তিনি।

আশির দশকে এই দিনে রাজধানী ঢাকায় যাত্রাবাড়ী নানাবাড়িতে জোবায়ের আহমেদ নবীন জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈত্রিক বাড়ি মুন্সীগঞ্জ জেলার লৌহজং থানার গাওদিয়া গ্রামে। বাবা এম এ জাহের ঝিলন ও নাজমা জাহেরের চার সন্তানের মধ্যে তিনি বড়।

নবীন পুরান ঢাকার ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে এসএসসি, নাজিমুদ্দীন রোডে অবস্থিত শেখ বোরহানুদ্দীন পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কলেজের ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে এইচএসসি, মালিবাগে অবস্থিত আবুজর গিফারী কলেজের মার্কেটিং বিভাগ থেকে অনার্স এবং শেখ বোরহানুদ্দীন পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কলেজের মার্কেটিং বিভাগ থেকে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। এরপর অতীশ দীপঙ্কর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগ থেকে এমবিএ সম্পন্ন করেছেন তিনি।

২০০৩ সালে পশ্চিমবঙ্গের বাকুড়া থেকে প্রকাশিত ‘ইস্পাত বলয়’ পত্রিকার বাংলাদেশ ব্যুরো প্রধান হিসেবে পেশাগত সাংবাদিকতা শুরু করেন জোবায়ের আহমেদ নবীন। এরপর কাজের ধারাবাহিকতায় ২০০৬ সালে দৈনিক বাংলাবাজারে সহ-সম্পাদক, ২০০৯ সালের শেষের দিকে ইংরেজি দৈনিক বাংলাদেশ টুডেতে সহ-সম্পাদক, ২০১০ সালে দৈনিক যায়যায়দিনে সহ-সম্পাদক ও ২০১২ সালের এপ্রিলে দৈনিক মানবকণ্ঠে জ্যেষ্ঠ সহ-সম্পাদক পদে যোগ দেন এরপর দু’দফা পদোন্নতি পেয়ে যুগ্মবার্তা সম্পাদক হন তিনি। একইসঙ্গে তিনি মানবকণ্ঠের ভারপ্রাপ্ত বার্তা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।

নবীন সাংবাদিকতার পাশাপাশি ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিলের একবার ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এবং পর পর দুইবার কোষাধ্যক্ষ পদে সর্বোচ্চ ভোটে নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন।

পিবিএ/জেআই